জাতীয় বিভাগীয় সংবাদ

কিশোরগঞ্জে হাসপাতালের বাইরে খোলা আকাশের নিচে সন্তান প্রসব!

কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধি: নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে খোলা আকাশের নিচে একটি ফুটফুটে কন্যা সন্তান প্রসব করেছেন রেনু বেগম নামে এক গৃহবধু।

শিশু
প্রতীকী ছবি

শুক্রবার (১১ অক্টোবর) দিবাগত রাত ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ওই গৃহবধূ উপজেলার চাঁদখানা ইউনিয়নের নগরবন্দ গ্রামের সাদেকুল ইসলামের স্ত্রী।

এ নিয়ে এলাকাবাসী নিরাপদ মাতৃত্ব কার্যক্রমে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র এবং কমিউনিটি ক্লিনিকের দায়িত্বরত মাঠকর্মীর সুপারভাইজারদের অবহেলাকে দায়ি করেছেন।

আজ শনিবার (১২ অক্টোবর) এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ওই গৃহবধুর গর্ভে সন্তান আসার পর ল্যাম্ব প্রকল্পের কার্যক্রমে ইউনিয়ন কমিউনিটি ক্লিনিকে চেকআপ করান। ওই ইউনিয়নের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণকেন্দ্র এবং কমিউনিটি ক্লিনিকের দায়িত্বরত মাঠকর্মী ও সুপারভাইজারদের অবহেলার কারণে প্রসবের দুই দিন আগে ওই গৃহবধুকে তার বাড়ি থেকে নিয়ে কমিউনিটি ক্লিনিকে বা হাসপাতালে নিরাপদে রাখার ব্যবস্থা করেননি।

ঘটনার দিন রাত ৯টার দিকে প্রসব বেদনা উঠলে ওই গৃহবধূকে তার স্বামীসহ পরিবারের লোকজন ভ্যান যোগে প্রথমে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কর্মীদের খোঁজ করেন। কিন্তু তাদের কাছ থেকে কোন সহযোগিতা না পেয়ে উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

হাসপাতালের সামনের চত্বরে ভ্যানের উপর প্রসূতিকে রেখে লোকজন রোগী বহনের ট্রলি আনতে হাসপাতালের ভেতর যায়। এমন সময় খোলা আকাশের নিচে ওই গৃহবধু একটি কন্যা সন্তান প্রসব করেন। তাৎক্ষণিকভাবে হাসপাতালের নার্স ও চিকিৎসকরা ছুটে আসেন। সেখানে কাপড় দিয়ে পদার্ করে রাখেন তারা। এরপর রোগী ও নবজাতন কন্যা সন্তানকে হাসপাতালের ভেতরে নেয়া হয়।

ওই গৃহবধূর স্বামীর অভিযোগ করে জানান, তাদের ইউনিয়ন পর্যায়ে যারা নিরাপদ প্রসব করার দায়িত্বে রয়েছেন তারা সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করেন না। তারা চেকআপ করলেও প্রসবের দিনক্ষণ সম্পর্কে কোন আগাম সর্তকবার্তা জানাননি।

তিনি চাঁদখানা ইউনিয়নের দায়িত্বে নিরাপদ মাতৃত্ব কার্যক্রমে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণকেন্দ্র এবং কমিউনিটি ক্লিনিকের মাঠকর্মী ও সুপারভাইজার রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে শাস্তি দাবি করেন।

উপজেলা হাসপাতালের সহকারী মেডিকেল অফিসার ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, নবজাতক ও প্রসূতি দুইজনই সুস্থ ও ভাল আছেন। তাদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডা. রনজিত কুমার বর্মন জানান, চাঁদখানা ইউনিয়নের স্বাস্থকর্মীরদের যে দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগ উঠেছে তা তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



জুমবাংলানিউজ/একেএ




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


Add Comment

Click here to post a comment

সর্বশেষ সংবাদ