Views: 41

জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

খুলে দেওয়া হলো ‘পাবজি’ গেম

image-138612জুমবাংলা ডেস্ক : অনলাইন ভিডিও গেম প্লেয়ার আননোনস ব্যাটেলগ্রাউন্ডস (পাবজি) খুলে দেওয়া হয়েছে। বন্ধ করার ২৪ ঘণ্টা না পেরোতেই গেমটি খুলে দেওয়া হয়।

তরুণেরা সহিংসতায় উদ্বুদ্ধ হতে পারে এমন আশঙ্কায় গেমসটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। শুক্রবার বিকালে ফেসবুক পোস্টে একজন পুলিশ কর্মকর্তা গেমটি বন্ধ করার তথ্য জানানোর পর রাতে আরেক পোস্টে তা খুলে দেওয়ার কথা জানান ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

ওই পোস্টে মন্ত্রী লেখেন, ‘PUBG ব্যবহারকারী যারা এটি ব্লক করায় নাখোশ ছিলেন তারা জেনে খুশি হবেন যে এটি আর ব্লক করা নেই।’

পরে মন্ত্রী গণমাধ্যমকে জানান, ‘পাবজি নিষিদ্ধ করা হয়ে ছিল। সেটা আবার খুলে দেওয়া হয়েছে। আমাদের ধারণা ছিল, এটি খুব ক্ষতিকর একটি বিষয়। পরে পর্যালোচনা করে দেখে ক্ষতিকারক এমন কোনো কিছু পাওয়া যায়নি। তাই খুলে দেওয়া হয়েছে।’

মোস্তাফা জব্বার বলেন, রেডইট ওয়েবসাইট বন্ধ করা হয়েছে। কারণ, এখানে পর্নো উপাদান রয়েছে। বাকি সব কটি গেম খুলে দেওয়া হয়েছে।

শিক্ষার্থীদের মধ্যে সহিংস মনোভাব তৈরি করা, পড়ালেখায় শিক্ষার্থীদের মনোযোগে ব্যাঘাত ঘটনোর আশঙ্কায় গতকাল পাবজি গেমটি বন্ধ করার কথা জানানো হয়।

স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিভাবকদের কাছ থেকে অসংখ্য অভিযোগ পাওয়ার পর গেমটি বাংলাদেশ থেকে খেলা বন্ধ করে দেওয়া হয়। এর কিছু সময় পর সেটি আবার চালু করার কথা জানানো হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে গুগল প্লে-স্টোর ও অ্যাপল অ্যাপসে যুক্ত হয় পাবজি গেমটি। এরপর ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বব্যাপী। দুই বছরের মধ্যে গেমটি প্রায় ১০ কোটিরও বেশি ডাউনলোড করা হয়েছে। একইসঙ্গে পাবজি মোবাইল লাইটও ১০ লাখের বেশিবার ডাউনলোড করা হয়েছে।

বিশ্বের অনেক দেশের মতো বাংলাদেশেও তরুণ সমাজের একটি বড় অংশ এই গেমে আসক্ত হয়ে পড়ে। এক সময় এই আসক্তি পরিণত হয় নেশায়। যা নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে অনলাইনে নিমগ্ন তারুণ্যের ওপর।

পাবজির ক্ষতিকর দিক বিবেচনায় নিয়ে এরইমধ্যে বেশ কয়েকটি দেশ গেমটি নিষিদ্ধ করেছে। সবশেষ গত ১৩ এপ্রিল নিষিদ্ধ করে নেপাল। ভারতের গুজরাট রাজ্য সরকারও এই গেম খেলার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এমনকি পাবজি খেলার কারণে পুলিশের হাতে আটকও হয়েছে এ রাজ্যের কয়েকজন।