ক্রিকেট (Cricket) খেলাধুলা

জুয়াড়ির সঙ্গে সাকিবের কথোপকথন : আইসিসি’র দেওয়া ১৬ তথ্য

Dark Mode

shakib-Acu-750x563

স্পোর্টস ডেস্ক : জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন রাখায় ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) দুই বছর নিষিদ্ধ করেছে সাকিব আল হাসানকে। দীপক আগারওয়াল নামের এক জুয়াড়ি বিভিন্ন সময় যোগাযোগ করলেও তিনি বিষয়টি আইসিসি কিংবা বিসিবিকে জানাননি। কী কথা হয়েছিল ওই জুয়াড়ির সঙ্গে, আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী ইউনিটের (আকসু) কাছে বলেছেন সাকিব।

মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে সাকিবের শাস্তির বিষয়টি নিশ্চিত করার সঙ্গে আইসিসি পুরো ঘটনার দৃশ্যপট তুলে ধরেছে। আকসুর কাছে দেওয়া সাকিবের তথ্যে উঠে এসেছে, তিনবার আগারওয়াল তাকে ম্যাচ পাতানোর বিভিন্ন ইঙ্গিত দিলেও সেটা তিনি জানাননি আইসিসি কিংবা বিসিবিকে। জুয়াড়ির সঙ্গে সেই কথোপকথন তুলে ধরা হলো-

তথ্য এক: ঘটনার শুরু ২০১৭ সালের নভেম্বরে। ৪ নভেম্বর থেকে ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত ঢাকা ডায়নামাইটের হয়ে বিপিএল খেলেন সাকিব আল হাসান। ঘটনাগুলোও তখন থেকেই ঘটতে শুরু করে।

তথ্য দুই: সাকিব জানতেন তার এক পরিচিত ব্যক্তি মি. আগরওয়াল নামের এক ফিক্সারকে তার টেলিফোন নাম্বার দিয়েছেন। আর ওই মি. আগরওয়াল কেবল সাকিবের নয়, তার পরিচিত ওই ব্যক্তির কাছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে যত ক্রিকেটার খেলছেন সকলের কন্ট্যাক্ট নাম্বার চেয়েছিলেন।

তথ্য তিন: ২০১৭ এর নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে মি. আগরওয়ালের উষ্কানিতে তার সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে কিছু মেসেজ আদান প্রদান করেন সাকিব আল হাসান। এই কথপোকথনের এক পর্যায়ে আগরওয়াল সাকিবের সঙ্গে দেখা করতে চান।

তথ্য চার: ২০১৮ এর জানুয়ারি মাসে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়েকে নিয়ে বাংলাদেশেই একটি ত্রিদেশীয় সিরিজ আয়োজন করা হয়। সেই সিরিজ চলাকালেও সাকিব ও আগরওয়ালের মাঝে হোয়াটসঅ্যাপে কথপোকথন হয়।

তথ্য পাঁচ: ২০১৮ সালের ১৯ জানুয়ারি আগরওয়াল সাকিবকে এক হোয়াটসঅ্যাপ বার্তায় ম্যান অফ দ্য ম্যাচ হওয়ায় অভিনন্দন জানান। এবং পরপরই তিনি আরও একটি বার্তা পাঠান, তাতে লেখেন ‘কাজটি আমরা এখনই করবো, না কি আইপিএল পর্যন্ত অপেক্ষা করবো। ‘Do we work in this or i wait till the ipl’।

তথ্য ছয়: এই ‘Work’ শব্দটি দিয়ে আগরওয়াল বুঝাতে চেয়েছিলেন, সাকিব যেনো তাকে ম্যাচের ভেতরকার তথ্য দেন।

তথ্য সাত: আগরওয়ালের তরফ থেকে পাওয়া এসব বার্তা বা প্রস্তাবের বিষয়গুলো আকসু তথা অন্য দুর্নীতি বিরোধী কর্তৃপক্ষকে জানাননি সাকিব।

তথ্য আট: ২০১৮ এর ২৩ জানুয়ারি আগরওয়ালের কাছ থেকে আরেকটি মেসেজ পান সাকিব। এতে লেখা ছিলো ‘ভাই এই সিরিজে কী কিছু আছে? ‘ Bro anything in this Series?’

তথ্য নয়: আকসুকে সাকিব নিশ্চিত করে জানান যে, মি. আগরওয়ালের এই অনুরোধটিও ছিলো তিনি যেনো চলমান ত্রী-দেশিয় সিরিজের ভেতরকার খবর তাকে দেন।

তথ্য দশ: এবারেও মি. আগরওয়ালের তরফ থেকে ভেতরকার তথ্য পাচারের এই অনুরোধের বিষয়টি আকসু কিংবা অন্য কোনও দুর্নীতি বিরোধী কর্তৃপক্ষকে জানাননি সাকিব আল হাসান।

তথ্য এগারো: ২০১৮ সালের ২৬ এপ্রিল সাকিব সানরাইজারস হায়দ্রাবাদের পক্ষ হয়ে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে খেলেন।

তথ্য বারো: সেদিনও মি. আগরওয়ালের কাছ থেকে সাকিব হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ পান, যাতে তিনি একজন সুনির্দিষ্ট খেলোয়াড় ম্যাচটিতে খেলবেন কিনা তা জানতে চান। সেটিও ছিলো ম্যাচের ভেতরকার তথ্য চাওয়া।

তথ্য তেরো:  এর পরেও সাকিবের সঙ্গে আগরওয়ালের কথাবার্তা চলতে থাকে। যার মধ্যে বিটকয়েন, ডলার একাউন্ট এসব শব্দের ব্যবহার ছিলো। এমনকি তিনি সাকিবের ডলার অ্যাকাউন্টের বিস্তারিত তথ্যও জানতে চান। এই সব বার্তার এক পর্যায়ে সাকিব প্রথমবারের মতো উত্তর দেন। এবং তিনি বলেন তিনি মি. আগরওয়ালের সঙ্গে দেখা করতে চান।

তথ্য চৌদ্দ: ২০১৮ সালের ২৬ এপ্রিলের এই বার্তাসহ আরও কিছু মুছে ফেলা বার্তার কথাও স্বীকার করেন সাকিব আল হাসান। যার সবগুলোতেই মি. আগরওয়ালের পক্ষ থেকে ম্যাচে কিংবা সিরিজের ভেতরকার খবর জানতে চাওয়া হয়েছিলো।

তথ্য পনেরো: সাকিব নিশ্চিত করেন যে আগরওয়ালের বিষয়ে তিনি কিছুটা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন এবং তার মনে হচ্ছিলো তিনি প্রতারিত হচ্ছেন এবং বোধ করছিলেন মি. আগরওয়াল একজন বুকি (জুয়াড়ি)।

তথ্য ১৬: মি. আগরওয়ালের পক্ষ থেকে ২৬ এপ্রিল পাওয়া এই সব প্রস্তাবের  কোনওটিও সাবিক আল হাসান আকসু কিংবা অন্য কোনও দুর্নীতি বিরোধী কর্তৃপক্ষকে জানাননি।



জুমবাংলানিউজ/এসএস

সর্বশেষ সংবাদ




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


জনপ্রিয় খবর

Add Comment

Click here to post a comment

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জনপ্রিয় খবর