খেলাধুলা

জুয়াড়ি আগারওয়ালের প্রস্তার পেলেও যে পদক্ষেপ নেওয়ায় বেঁচে গেলেন তামিম

স্পোর্টস ডেস্ক : ভারতীয় নাগরিক দীপক আগারওয়াল একজন চিহ্ণিত ক্রিকেট জুয়াড়ি। তিনি আইসিসির দুর্নীতি দমন শাখার (আকসু) ‘কালো তালিকাভুক্ত’। অর্থাৎ, এই জুয়াড়ির ফোনালাপ থেকে শুরু করে অন্য সকল কার্যক্রমই নজরে রাখে আকসু।
tamim-iqbal
এই ক্রিকেট জুয়াড়িই সাকিব আল হাসানকে প্রস্তাব দিয়েছিলেন। আইসিসির দেয়া তথ্য অনুযায়ী, সাকিবের সাথে প্রথমবার আগারওয়াল যোগাযোগ করেন ২০১৭ সালে বিপিএল চলাকালে। সে বছর নভেম্বর অনুষ্ঠিত বিপিএলে সাকিব খেলেছিলেন ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে। ওই সময় দলের ভেতরের বিভিন্ন তথ্য জানতে চেয়েছিলেন আগারওয়াল।

কিন্তু সাকিব তাতে কর্ণপাত করেননি। তবে, সাকিবের ক্ষেত্রে সমস্যাটি হচ্ছে, তিনি আগারওয়ালের কাছ থেকে পাওয়া প্রস্তাবের কথা নিজের ভেতরেই রেখেছিলেন। তিনি বিসিবির দুর্নীতি দমন বিভাগ বা আইসিসি কাউকেই জানাননি।

শুধু সাকিব নয়, আগারওয়াল টার্গেট করেছিলেন তামিম ইকবালকেও। তামিমকেও প্রস্তাব দিয়েছিলেন আগারওয়াল। কিন্তু সাকিবের মতো ভুল করেননি তামিম। বিষয়টি তামিম সঙ্গে সঙ্গেই বিসিবির দুর্নীতি দমন বিভাগের কর্মকর্তাকে অবহিত করেন।

ওই বিপিএলের মাঝপথে ঢাকায় উপস্থিত আইসিসির ‍দুর্নীতি দমন শাখার (আকসু) কর্মকর্তাদের দরবারে তামিমকে হাজির হতে হয়েছিল।

বিসিবির একটি সূত্র জানিয়েছে, ‘সেদিন ঢাকার একটি হোটেলে আকসুর অস্থায়ী ‘কাঠগড়া’য় তামিম ছাড়াও আরো ছয় বাংলাদেশি ক্রিকেটারকে ডাকা হয়েছিল। তামিম সেখানে ঢুকে কিছুটা হকচকিত হয়ে যান। আকসুর নারী কর্মকর্তার পক্ষ থেকে জানতে চাওয়া হয় দীপক আগারওয়ালের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগের বিষয়টি। তবে আগেই বিসিবির দুর্নীতি দমন বিভাগের কর্মকর্তা মেজর মোর্শেদকে জানিয়ে রাখায় তামিমের কোনো সমস্যা হয়নি।’

একটি সূত্র বলছে, ‘এরা শুরুতে সাধারণ ভক্ত পরিচয়ে কিংবা কারো রেফারেন্সে আলাপ শুরু করে। দীপক ফ্যান হিসেবে পরিচয় দিয়েছিল। বলেছিল, দেখা করতে চায়। তামিমের পক্ষ থেকে সাড়া না পাওয়া একসময় দীপক ডেসপারেটলি প্রস্তাব দেয় যে, এবার তো টিভিতে খেলা (বিপিএল) দেখাবে। টাইম টু মেক সাম মানি।’



জুমবাংলানিউজ/এসওআর




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


Add Comment

Click here to post a comment