জাতীয় বিভাগীয় সংবাদ

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা যুবক নিহত

জুমবাংলা ডেস্ক: কক্সবাজারের টেকনাফের হোয়াইক্যং উরুবুনিয়া কাটাখাল এলাকায় বৃহস্পতিবার ভোরে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা যুবক নিহতের কথা জানিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। খবর ইউএনবি’র।

নিহতরা হলেন- উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরের ৭ নম্বর ক্যাম্পের সৈয়দ হোসেনের ছেলে মো. সাকের (২২) ও টেকনাফ মুচনী রোহিঙ্গা শিবিরের মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে নুর আলম (৩০)। বিজিবির দাবি, নিহত দুজনই ইয়াবা কারবারি।

টেকনাফ-২ বিজিবির উপ-অধিনায়ক মেজর শরীফুল ইসলাম জোমাদ্দারের ভাষ্য, বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে টেকনাফের হোয়াইক্যং উলুবুনিয়া গ্রামের পূর্বপাশে নাফনদীর কাটাখাল দিয়ে ইয়াবার বড় একটি চালান বাংলাদেশে প্রবেশ করবে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির একটি দল সেখানে অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় নাফনদী পার হয়ে একটি নৌকা কাটাখালের দিকে আসতে দেখে তাদের চ্যালেঞ্জ করলে বিজিবি সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে চোরাকারবারিরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। আত্মরক্ষার্থে বিজিবিও পাল্টা গুলি চালায়।

ওই কর্মকর্তার দাবি, একপর্যায়ে গুলি বিনিময় থেমে গেলে ঘটনাস্থল থেকে দুই ব্যক্তির মরদেহ, ৫০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, একটি দেশীয় তৈরি বন্দুক, তিন রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও দুইটি ধারালো কিরিচ উদ্ধার করা হয়।

বিজিবির দাবি, ‘বন্দুকযুদ্ধের’ সময় তাদের দুই সদস্য আহত হয়েছেন।

মেজর শরীফুল ইসলাম জোমাদ্দার জানান, মরদেহ দুটির পরিচয় শনাক্ত করা হলে দুজনই রোহিঙ্গা বলে জানা যায়। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ দুটি কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।


জুমবাংলানিউজ/একেএ