অর্থনীতি-ব্যবসা

ফের বাড়ছে পেঁয়াজের দাম

3fgবাজারে এখনো ঝাঁজ কমেনি পেঁয়াজের। সংশ্লিষ্টরা জানান, সরকারের নানা উদ্যোগে মাঝে পেঁয়াজের দর কিছুটা কমলেও এখন আবার আগের মতোই ঊর্ধ্বমূল্যে বিক্রি হচ্ছে।

ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ার আগে ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজের যে রপ্তানি আদেশ দিয়েছিলেন সেসব আটকে পড়া পেঁয়াজ আসা শেষের পথে।

২৯ সেপ্টেম্বরের আগে রপ্তানি আদেশপ্রাপ্ত যেসব পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাক ভারতের মহদীপুর স্থলবন্দরে আটকে ছিল সেগুলো মঙ্গলবার ও বুধবারের মধ্যে আসা শেষ হয়ে যাবে। এর পর আরেক দফা পেঁয়াজের দাম বাড়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

দেশীয় পেঁয়াজ ওঠার আগ পর্যন্ত আর পেঁয়াজের দাম কমার কোনো লক্ষণ নেয় বলে অভিমত এসব ব্যবসায়ীদের।

ভারতের নিষেধাজ্ঞার আগে সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে প্রতিদিন গড়ে ২ শতাধিক ট্রাক পেঁয়াজ এলেও নিষেধাজ্ঞার কারণে তা বন্ধ হয়ে যায়। তবে ২৯ সেপ্টেম্বরের আগে যেসব পেঁয়াজের রপ্তানি আদেশ ছিল সেগুলোর মধ্যে ২১টি ট্রাক পেঁয়াজ ভারতের মহদীপুর বন্দরে এখনো আটকে আছে। এর মধ্যে মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) দুপুর পর্যন্ত সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে ৫টি ট্রাক প্রবেশ করেছে। বাকি ১৬টি ট্রাক আগামী ২৮ অক্টোবরের মধ্যে প্রবেশ করলেই এ বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আসা বন্ধ হয়ে যাবে।

পানামার পোর্ট ম্যানেজার মইনুল ইসলাম জানান, রপ্তানি নিষেধাজ্ঞার আগে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের অর্ডার দেওয়া পেঁয়াজের মধ্যে গত ৭ দিনে ১৬৭ ট্রাক পেঁয়াজ ভারতের মহদীপুর স্থলবন্দর থেকে সোনামসজিদ স্থলবন্দরে প্রবেশ করেছে।

এর মধ্যে রোববার মহদীপুর স্থলবন্দর থেকে ২৩, সোমবার ৩১, মঙ্গলবার ২৯, বুধবার ৩০, বৃহস্পতিবার ২৫, শনিবার ২৫ ও রোববার ৪ সোমবার ৯ এবং মঙ্গলবার দুপুর ২টা পর্যন্ত ৫ ট্রাক ভারতীয় পেঁয়াজ সোনামসজিদ বন্দরে প্রবেশ করেছে বলে জানান তিনি।

এদিকে চাহিদামত পেঁয়াজ না আসায় সোনামসজিদ বন্দর সংলগ্ন এলাকায় স্থানীয় বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছে প্রতি কেজি ৯০ থেকে ১০০ টাকা করে। যদি এ বন্দর দিয়ে পুরোপুরি পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ হয়ে যায়, তবে এ পণ্যটির দাম আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

তবে দাম নিয়ন্ত্রণে জরুরী ভিত্তিতে মিসর ও তুরস্ক থেকে পেঁয়াজ আনা হচ্ছে। আগামী সপ্তাহে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে খালাস হবে আমদানিকৃত পেঁয়াজ। মসলা জাতীয় এই পণ্যটি দ্রুত ছাড়করণে বন্দরকে নির্দেশ দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। তবে আমদানি মূল্যসহ সব ধরনের খরচ সমন্বয় করে পেঁয়াজের দাম নির্ধারণ করে দেবে সরকার। আশা করা হচ্ছে, ৫০-৬০ টাকার মধ্যেই বিক্রি হবে এসব পেঁয়াজ।



জুমবাংলানিউজ/ জিএলজি




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


Add Comment

Click here to post a comment