ক্রিকেট (Cricket) খেলাধুলা

ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব, সমকাল সাংবাদিকের দাবি আগেই জানতো বিসিবি!

sakibস্পোর্টস ডেস্ক : ম্যাচ ফিক্সিং-এর প্রস্তাব পেয়েও তা আইসিসিকে না জানানোয় সাকিব যে শাস্তি পেতে যাচ্ছেন, তা বিসিবিও জেনেছে অন্তত ১৫ দিন আগে৷ এ নিয়ে সাকিব ও বিসিবি সভাপতির একাধিক বৈঠকও হয়েছে বলে জানা গেছে। খবর ডয়চে ভেলের।

খেলোয়াড়দের আন্দোলনের কিছুদিন আগে দুবাইয়ে আইসিসির একটি বোর্ড মিটিং হয়৷ আলী সেকান্দার বলছেন, সে মিটিংয়েই বিসিবি সভাপতি ও সিইওকে সাকিবের ফিক্সিং-এর প্রস্তাব গোপনের বিষয়ে প্রমাণ পাওয়ার তথ্য আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়৷

আইসিসির অ্যান্টিকরাপশন অ্যান্ড সিকিউরিটি ইউনিট- আকসু গত দুই বছর ধরেই এ নিয়ে তদন্ত করছে৷ তবে এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার পরই কেবল তা জানানো হয়েছে বিসিবিকে৷ এখনও সাকিবের শাস্তির বিষয়ে আনুষ্ঠানিক চিঠি না পেলেও তিনি যে শাস্তি পেতে যাচ্ছেন, এ বিষয়ে নিশ্চিত সবাই৷

ভারত সফর, ক্রিকেটারদের ধর্মঘট, বিসিবি সভাপতির নানা বক্তব্য এবং এর পরপরই সাকিবের শাস্তির বিষয়টির টাইমিং নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্রিকেটপ্রেমীরাও নানা প্রশ্ন তুলছেন৷ অনেকে এমন ধারণাও প্রকাশ করছেন, হয়তো আন্দোলনে যাওয়ার শাস্তি হিসেবেই এমন ফল ভোগ করতে হচ্ছে সাকিবকে৷

কিন্তু আলী সেকান্দার এমন মন্তব্যকে একেবারেই উড়িয়ে দিচ্ছেন ‘ক্রিকেটপ্রামীদের আবেগ’ বলে৷ তিনি বলছেন, আকসু স্বাধীন একটি প্রতিষ্ঠান, এবং ক্রিকেট নিয়ে নানা অনিয়ম-দুর্নীতির তদন্তে তাদের ওপর প্রভাব বিস্তার করার সুযোগ বিসিবি কেন, কোনো ক্রিকেট বোর্ডেরই নেই৷

সেকান্দার বলছেন, ‘‘বিসিবি কিছু বললে আইসিসি শুনবে, সেটা কিন্তু না৷ আইসিসির অধীনস্ত একটা ক্রিকেট বোর্ড বিসিবি৷” প্রতিবেদন প্রকাশের ক্ষেত্রেও কোনো ‘বিশেষ সময়’ বেছে নেয়া নয়, বরং তথ্য পাওয়ার দুদিনের মধ্যেও যাচাই করেই তা প্রকাশ করা হয়েছে বলেও জানান সেকান্দার৷ এই সময়ের মধ্যে তিনি বিসিবি ও সাকিবের সঙ্গেও কথা বলার চেষ্টা করেছেন ৷

ক্রিকেটারদের আন্দোলনকে এ ঘটনার সঙ্গে একেবারেই মিলিয়ে ফেলা যাবে না বলেও মনে করেন দৈনিক সমকালের এই ক্রীড়া প্রতিবেদক৷ লীগ থেকে শুরু করে বয়সভিত্তিক খেলা এবং নারী ক্রিকেটের দাবিদাওয়াও ছিল এর মধ্য়ে৷

তবে এ নিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন কিছু বিস্ফোরক মন্তব্য করেন, এটি ঠিক হয়নি বলেও মনে করেন সেকান্দার৷ আফগানিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশ দেশের মাটিতে কেনো হারলো, এ নিয়ে বেশ কিছু ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করেন পাপন৷ ‘ফিক্সিং-এর রিপোর্ট আসছে’ বলেও মন্তব্য করতে শোনা গিয়েছিল তাকে৷

তবে শেষ পর্যন্ত বিসিবি সাকিবের পাশেই দাঁড়াবে বলেও মনে করেন সেকান্দার৷ নিষেধাজ্ঞা আসছে, এটা নিশ্চিত৷ তবে যেহেতু ‘অন্যায়টা’ ছোট, ফলে সাকিব আপিল করলে তা সর্বনিম্ন ছয় মাসে নেমে আসার সম্ভাবনাই বেশি বলেও মনে করছেন তিনি৷

তবে এমন ধাক্কা টাইগার ক্রিকেট কতোটা ভালোভাবে সামলাতে পারবে, সেটিই এখন দেখার বিষয়৷



জুমবাংলানিউজ/এসআর

সর্বশেষ সংবাদ




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


Add Comment

Click here to post a comment

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ