জাতীয়

শিক্ষকদের বোনাস-ইনক্রিমেন্ট সমন্বয় করা হবে

জুমবাংলা ডেস্ক : এমপিওভুক্ত কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষকদের ঈদ বোনাস এবং ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধিসহ জুলাই মাসের বেতনের হিসেবে গড়মিল সৃষ্টি হয়েছে। এ জটিলতা জুলাই মাসে ৫ কোডে এমপিওভুক্তরা ৩০০ টাকা কম এবং ১০ কোড এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা ৪০ টাকা বেশি বেতন পেয়েছেন। এর ফলে, তাদের ঈদ বোনাস হিসাবেও গরমিল হয়েছে। অসাবধানতাবশত এ ভুল হয়েছে বলে দাবি করে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর বলছে আগামী মাসের বেতনের সাথে এসব কম-বেশি টাকা সমন্বয় করে দেয়া হবে।

গত নভেম্বরে এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বৈশাখী ভাতা ও ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি দেয়ার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে প্রেক্ষিতে এ বছরের জুলাই মাসে দ্বিতীয় দফার বার্ষিক প্রবৃদ্ধি পেলেন শিক্ষকরা তবে, অসাবধানতাবশত কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের ঈদ বোনাস এবং ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধিসহ জুলাই মাসের বেতনের হিসেবে কম-বেশি করেছে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর।

কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র জানায়, বার্ষিক বর্ধিত বেতনসহ জুলাই মাসের এমপিও দেয়ার সময় অসাবধানতাবশত এ ভুল হয়েছে। ৫ কোডে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের মূল বেতন ৪৬ হাজার ৯৭০ টাকা হলেও জুলাই মাসে তাদের ৪৬ হাজার ৬৭০ টাকা দেয়া হয়েছে। মূল বেতনে ৩০০টাকা কম পেয়েছেন তারা। এরফলে ৫ কোডে এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা ৩৭৫ টাকা কম ঈদ বোনাস পেয়েছেন।

অপরদিকে ১০ কোডে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের মূল বেতন ১৭ হাজার ৬৪০ টাকা হলেও জুলাই মাসে তাদের ১৭ হাজার ৬৮০ টাকা দেয়া হয়েছে। মূল বেতনে ৪০ টাকা বেশি পেয়েছেন তারা।এরফলে ১০ কোডে এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা ৫০টাকা বেশি ঈদ বোনাস পেয়েছেন।

অসাবধানতাবশত এ ভুল হয়েছে বলে দাবি করেছে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। কর্মকর্তারা জানান, কমবেশি টাকা যাওয়ার বিষয়টি কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের নজরে এসেছে। আগস্ট মাসের এমপিওর সাথে কম-বেশি পাওয়া শিক্ষকদের টাকা সমন্বয় করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। টাকা সমন্বয় করে দেয়ার বিষয়টি জানিয়ে গত ১ আগস্ট আদেশ জারি করেছে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর।

জুমবাংলানিউজ/এসআর


আপনি আরও যা পড়তে পারেন