বিনোদন

‘সারাদিন কলা খেয়েই কাটিয়ে দিলাম’

Dark Mode

225112colaবিনোদন ডেস্ক : পূজা উদ্বোধনে তার কলকাতা নাইট রায়ডার্স বাহিনী নিয়ে একদিনের সফরে তিনি কলকাতায়। তাকে ঘিরে জনতার স্রোত। আজও মধুঢালা কণ্ঠস্বরে চেহারায় লাবণ্য ছড়ান।

কলকাতা ছাড়ার আগে বিমানবন্দর থেকে নতুন ছবি আর নারীশক্তি নিয়ে অকপটে কথা বলেছেন জুহি চাওলা। তিনি বলেন, এ তো পুরো অন্য কলকাতা। বাতাসে উৎসবের গন্ধ। সারা শহর পোস্টারে মোড়া। কত লোক। সবাই আলোতে ঝলমল করছে। সেজেগুজে। কিছু ফিল্মের পোস্টারও দেখলাম।

‘গুমনামী’, ‘পাসওয়ার্ড’, ‘মিতিনমাসি’, ‘সত্যাণ্বেষী ব্যোমকেশ’ এই নতুন চার ছবি মুক্তির ব্যাপারে তিনি বলেন, এত ছবি রিলিজ করে কলকাতায় পূজায়! ও মাই গড! আমরা তো মুম্বাইয়ে ভাবতেও পারি না! খুব ভালো লাগল শুনে।

তিনি আরো বলেন, আমি আর ঋষি কাপুর ছবি করছি একটা। চিঙ্কুজি বলেছে আমায়, এ ছবিতে খুব মিষ্টি একটা চরিত্র আমার। সম্পর্কের গল্প। নাম এখনো ঠিক হয়নি।

প্রযোজনার ব্যাপারে তিনি বলেন, হ্যাঁ। কিছু চিত্রনাট্য পড়া হচ্ছে। বাছাই চলছে। তবে সবটাই মরাঠী ছবিকে ঘিরে।

দুর্গাপূজা উদ্বোধন করে মায়ের কাছে কী চাইলেন কিনা সে ব্যাপারে তিনি বলেন, এখন মায়ের কাছ থেকে কিছু চাই না। মাকে উল্টো ধন্যবাদ দিই। পূজা চলছে আমি এখন এটাই সকলকে বলতে চাই। মা আমাদের অনেক দিয়েছেন। আচ্ছা আপনি বলুন আমায়, আপনার নিশ্চয়ই পরিবার আছে?

তিনি আরো বলেন, ভাবুন তো, আমরা সবাই পরিবার পেয়েছি। বন্ধু পেয়েছি। খিদে পেলে খাবারের থালা পেয়েছি। সন্তান পেয়েছি। কাজ করার ক্ষমতা পেয়েছি। প্রয়োজনে কিছু ইচ্ছে হলে টাকা খরচ করার সুযোগ পেয়েছি। সম্মান পেয়েছি। আর কী চাইব বলুন তো? শুধু আমি নয়, এই কথাগুলো অনেক অনেক মানুষের ক্ষেত্রেই খাটে। আমরা এভাবে ভাবতে পারি না। ভাবি এগুলো তো পাবই! এই ভাবনার বদল চাই আমি কলকাতাবাসীর কাছ থেকে। দুর্গা মা আমাদের শক্তি।

তিনি আরো বলেন, আমি মনে করি মেয়েরা শক্তি নিয়ে জন্মায়। তাদের আলাদা করে শক্তির প্রয়োজন হয় না। একজন মেয়ে চাকরি করলেই কেবল সে ‘এমপাওয়ার্ড’ হয় এটা আমার মনে হয় না। আমাদের পৃথিবীই তো মা, আমরা তো ‘ফাদারল্যান্ড’ বলি না। ‘মাদারল্যান্ড’ বলি। আর একটা কথা বলি, মেয়েরা চাইলে গোটা একটা ইন্ডাস্ট্রি একা চালাতে পারে। আর ছেলেদের দু’দিন সংসার চালাতে দিন। পারবে না। একা হাতে সংসার? ছেলেদের পক্ষে অসম্ভব! মেয়েরা শক্তি নিয়েই জন্মায়। তাই তো দুর্গাপূজা।

তিনি আরো বলেন, আমি কলকাতায় আসি কেকেআর-এর খেলার জন্য। আজ দেখলাম কলকাতার সব জায়গা উৎসবের আলোয় ঝকঝক করছে। ইডেন গার্ডেন্স ক্রস করছিলাম, দেখলাম চারদিক শান্ত নিঝুম! মনে হলো এ কোন ইডেন গার্ডেন্স? আমি তো আসি, এই মাঠকেই উৎসবের আলোয় সাজতে দেখি আর অন্য কলকাতাকে কম আলোতে দেখি! আজ উল্টো হলো। আজ আমার উপোস চলছে। আমি আজ সারাদিন কলা খেয়েই কাটিয়ে দিলাম।



জুমবাংলানিউজ/এসআর

সর্বশেষ সংবাদ




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


জনপ্রিয় খবর

Add Comment

Click here to post a comment

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জনপ্রিয় খবর